`ধর্ষণ বন্ধে সরকারকে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহন করতে হবে’ -শারমিন ফাতেমা ইন্না

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ লক্ষ্মীপুরে পালেরহাট পাবলিক হাইস্কুলের ছাত্রী হীরা মণিকে (১৪) ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় দোষীদের দ্রুত টাইব্যুনালে বিচারের আওতায় এনে মৃত্যুদন্ড- কার্যকর করার দাবি জানান। শারমিন ফাতেমা ইন্না, চার্টার প্রেসিডেন্ট, ইনার হুইল ক্লাব অব ঢাকা পেরিউইঙ্কেল

সম্প্রতি করোনাভাইরাসে সৃষ্ট সংকটের মধ্যেও দেশে ধর্ষণ বেড়ে গেছে। আইনের যথাযথ প্রয়োগ আর সামাজিক অবক্ষয়ের কারনেই দিন দিন ধর্ষনের পরিমান বাড়ছে বলে অভিমত ব্যক্ত করেছেন শারমিন ফাতেমা ইন্না।

এজন্য ধর্ষন বন্ধে সরকারকে আরো কঠোর হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। আপনার সংবাদ এ  দেয়া এক সাক্ষাতকারে এসব কথা বলেন শারমিন ফাতেমা ইন্না।

সাক্ষাতাকারে শারমিন ফাতেমা ইন্না বলেন, সস্প্রতি দেশে নারী নির্যাতন ও ধর্ষনের মতো জগন্য অপরাধ বেড়েই চলছে, এর প্রথম ও প্রধান কারন হচ্ছে আইনের শাসনের অভাব অথবা আইন আছে কিন্ত প্রয়োগ নেই।

অনেক সময় অপরাধীকে গ্রেফতার করা হয়না। তাই এ অপরাধ থেকে পরিত্রাণ পেতে হলে অপরাধী যেই হোক না কেন তাকে দ্রুততম সময়ের মধ্যে শাস্তির আওতায় আনতে হবে। তাহলেই আর কেউ এই অপরাধ করতে সাহস পাবেনা। এছাড়াও ধর্ষণ বন্ধে সরকারকে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহন করতে হবে।

প্রান্তিক আর্থসামাজিক ভাবে অবহেলিত ও সুবিধাবঞ্চিত নারীদের আরো উন্নয়ন ও অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য  দির্ঘীদিন যাবত কাজ করে যাচ্ছেন শারমিন ফাতেমা ইন্না। তার এই কাজের স্বীকৃত স্বরুপ ইউনাইটেড মুভমন্টে ফর হিউম্যান রাইটস তাকে “ অপরাজিতা সম্মাননা -২০২০ প্রদান করেন।

তিনি আরো বলেন, ‘মানুষ মানুষের জন্য’ মানুষের জন্য কিছু করায় আনন্দ ও তৃপ্তি আছে। যা অন্য কোনো কাজে নাই। এই আনন্দ সব কিছুর চেয়ে আলাদা। কিছু মানুষকে মানুষ সারা জীবন  মনে রাখে যিনি মানুষের জন্য কিছু কাজ করেন। মানুষ বেচে থাকে তার কর্মের মাধ্যমে বয়সে নয়, আমি মানুষের জন্য কি করলাম এটা চিন্তা করতে হবে। প্রতিটা ধর্মে আছে সেবা করার কথা। মানুষের সেবা করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *